পর্ব – ১০: লুপ কি? আরডুইনোতে লুপ ব্যবহার করার পদ্ধতি

বন্ধুরা আমাদের আরডুইনো বিষয়ক ধারাবাহিক ভিডিও টিউটোরিয়াল “ঘরে বসে আরডুইনো শিখুন, মজার মজার প্রজেক্ট তৈরী করুন” এর ১০ম পর্বে আপনাদের কে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। আজকের এই পর্বে আমরা লুপ নিয়ে আলোচনা করবো।

আরডুইনো বিষয়ক ধারাবহিক টিউটোরিয়ালের সবগুলো পর্ব একসাথে পড়তে এই লিংকে ক্লিক করুন। সবগুলো ভিডিও টিউটোরিয়াল একসাথে পেতে ইউটিউবের এই প্লে লিস্টটি দেখুন।

লুপ নিয়ে কথা বলতে গেলে প্রথমেই আমাদেরকে জেনে নিতে হবে লুপ কি? একদম সহজ ভাষায় বললে লুপ হলো কোন একটা শর্ত সাপেক্ষে কোন একটি নিদির্ষ্ট কাজকে একটি নিদির্ষ্ট সংখ্যকবার করানো। আমি একটা উদাহরণ দিয়ে বিষয়টা বুজানোর চেষ্টা করছি। ধরা যাক, একটা ছেলে যার ওজন হলো ৪০ কেজি। এই ছেলেটি রক্ত দান করতে চাচ্ছে। আমরা জানি সাধারণত রক্ত দিতে হলে শরীরের ওজন ৫০ কেজি হওয়া দরকার। এখন ধরুন আমরা তাকে একটা কাজ দিলাম যে তুমি তোমার ওজন বাড়াও। এখন এই কাজটাই আমরা একটা নির্দিষ্ট শর্ত সাপেক্ষে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত করাতে চাচ্ছি। শর্তটা হলো ওজন ৫০ কেজি হয়েছে কিনা। মনে করুন সে ডাক্তারের কাছে গেলো, ডাক্তার ওজন মেপে দেখলো ওজন ৪০ কেজি। ডাক্তার বললেন, যাও ভালো করে খাওয়া দাওয়া করো। সে কিছুদিন ভালো খাওয়া দাওয়া করে আবার গেলো। ডাক্তার আবার ওজন মেপে দেখলেন ওজন ৪২ কেজি হয়েছে। ডাক্তার আবার বললেন, যাও ভালো করে খাওয়া দাওয়া করো। সে কিছুদিন ভালো খাওয়া দাওয়া করে আবার গেলো। ডাক্তার আবার তার ওজন মেপে দেখলেন ৪৫ কেজি হয়েছে। ডাক্তার তখন তাকে আবার ওজন বাড়ানোর কথা বলে ফেরত পাঠাবেন। এভাবে সে কিছুদিন পর পর যায় এবং শর্তটা যাচাই করে। যতক্ষণ পর্যন্ত না সে শর্তটা পূরণ করতে পারছে ততদিন পর্যন্ত সে ভালো খাওয়া দাওয়া করে ওজন বাড়ানোর চেষ্টা করছে। এভাবে করতে করতে যেদিনই তার ওজন ৫০ কেজি হয়ে যাবে সেদিন তার শর্ত পূরণ হবে এবং তাকে আর ওজন বাড়ানোর জন্য আর বেশি খাওয়া দাওয়া করতে হবে না।

উপরের উদাহরণটা শুধুমাত্র বুজানোর জন্য দিয়েছি। এখানে আমরা মূলত যে বিষয়টা বুজতে পারছি তা হলো আমরা একটা ছেলেকে একটা নির্দিষ্ট কাজ করাচ্ছি একটা নির্দিষ্ট শর্ত সাপেক্ষে একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত। এই বিষয়টাকেই প্রোগ্রামিং এর ভাষায় লুপ বলা হয়।

অনেকের মনেই প্রশ্ন জাগতে পারে যে লুপ দিয়ে আমরা করবো টা কি। আসলে আমরা হয়তো এখনো লুপ নিয়ে কাজ করিনি বলে অনেকের মনে হচ্ছে এটার কোন দরকার আছে কিনা। কিন্তু যখনই লুপ নিয়ে কিছু কাজ দেখানো হবে তখনই বুজতে পারবেন এটা আসলে কতটা গুরুত্বপূর্ণ। একটা বিষয় এখানে একটু বলে রাখা দরকার তা হলো অনেকেই লুপ টা কে কন্ডিশনাল স্ট্যাটমেন্ট ( If, else) এর সাথে গুলিয়ে ফেলতে পারেন। দুইটা কিন্তু একইরকম মনে হলেও এদের কাজ আলাদা। কন্ডিশনাল স্ট্যাটমেন্টে আমরা একটা শর্ত দেই। শর্তটি পূরণ করতে পারলে একটা কাজ করতে বলি আর না পারলে আরেকটা কাজ। আর লুপ এর মধ্যে একটা শর্ত দেয়া হয়। এবং শর্তটা পূরণ করতে পারলে একটা কাজ করতে বলা হয়। এবং কাজ শেষ করে তাকে আবার শর্তটা যাচাই করে দেখতে হয়। যদি শর্তটা পূর্ণ করতে পারে তাহলে আবারও তাকে সেই কাজটা করতে হবে। এভাবে চলতে থাকবে যতক্ষণ পর্যন্ত না শর্তটা তার জন্য মিথ্যা হচ্ছে। ওই যে ছেলেটার উদাহরণ দিলাম। যতক্ষণ পর্যন্ত না ওজন ৫০ হচ্ছে ততক্ষণ তাকে ওজন বাড়াতে হচ্ছে। ওজন ৫০ হলেই সে লুপ থেকে বের হয়ে যাচ্ছে। কন্ডিশনাল স্ট্যাটমেন্টে একটা কাজ শুধু একবার হয়। কিন্তু লুপে একটা নির্দিষ্ট সংখ্যক বার কাজটা করানো যায়। এটাই কন্ডিশনাল স্ট্যাটমেন্টে এবং লুপের মৌলিক পার্থক্য।

আমি আশা করছি লুপ কি সে বিষয় সম্পর্কে আপনারা একটু হলেও ধারণা পেয়েছেন। বেসিক বিষয়টা বুজতে পারলেই আমরা বাকি কাজ সহজে করে ফেলতে পারবো। আমরা এখন ভিডিও টিউটোরিয়ালটি দেখবো। ভিডিওতে লুপ কিভাবে লিখতে হয় এবং ব্যবহার করতে হয় তা দেখানো হয়েছে। চলুন ভিডিওটি দেখে নিই।

আমি আশা করছি লুপ সম্পর্কিত ভিডিও এবং এই পোস্টটি আপনারা বুজতে পেরেছেন। এরপরেও যদি কারো এ বিষয়ে কোন প্রশ্ন থাকে আমাদেরকে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আমরা চেষ্টা করবো আপনাদের প্রত্যেকের প্রশ্নের উত্তর দিতে।

 আমাদের ভিডিও গুলো আপনাদের ভালো লাগলে ভিডিও গুলো শেয়ার করুন। যারা এখনো Naba Tech World চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করেননি তারা অবশ্যই চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করবেন।

আজ এখানেই বিদায় নিচ্ছি। ইনশাআল্লাহ নতুন পর্বে অন্য বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। সে পর্যন্ত সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। আল্লাহ হাফেজ।

Facebook Comments

Share This Post

Post Comment